শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

Penny Stock: পেনি স্টক কি? জানুন এর আসল সত্য! বিনিয়োগ করা কি উচিত দেখে নিন বিস্তারিত

Photo of author

By Anjan Mahata

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

আপনি জানলে অবাক হবেন 1998 সালে কোটাক মহিন্দ্রা ব্যাংকের একটি শেয়ারের দাম ছিল মাত্র ৮ টাকা যার বর্তমান মূল্য ২,০০০ টাকার কাছাকাছি। টাইটান কোম্পানির ২০০২ সালে একটি চেয়ারের দাম ছিল মাত্র ৩ টাকা বর্তমানে এই শেয়ারের দাম ৩,৭০০ টাকার কাছাকাছি। এ কোম্পানিগুলোকে দেশের বড় বড় কোম্পানিগুলির মধ্যে ধরা হয়। যে সকল বিনিয়োগকারী ওই সময়ে এই কোম্পানিগুলোতে বিনিয়োগ করেছিলেন তারা কতটা লাভ হবে না অবস্থায় রয়েছেন তা অবশ্যই বুঝতে পারছেন যেরকম রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালা টাইটান কোম্পানির শেয়ার কিনে আজ কতটা লাভবান অবস্থায় রয়েছে সেটা অবশ্যই জানেন।

এইসব শুনে হয়তো আপনাদের মনে হতে পারে যে কম টাকার বেশি পরিমাণ শেয়ার কিনে সহজেই খুব বেশি রিটার্ন পাওয়া সম্ভব। তাই অনেকেই পেনি স্টকে বিনিয়োগে আকৃষ্ট হয়ে পড়ে কম টাকা বিনিয়োগ করে কম সময়ে বড়লোক হওয়ার আশায়। কিন্তু আপনি কি জানেন এই পেনি স্টকের আসল সত্য? পেনি স্টকে বিনিয়োগ করার আগে এ নিয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী এক্ষেত্রে আপনি আপনার লাখ লাখ টাকা বাঁচাতে পারেন আজকের এই প্রতিবেদনে পেনি স্টক সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে, Panny Stock কি আপনাকে কোটিপতি বানাতে পারে বিস্তারিত জানতে অবশ্যই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

পেনি স্টক কি? (What is Panny Stock in Bengali)

যে সকল কোম্পানির শেয়ার প্রাইস ১০ টাকার কম হয় এবং যাদের মার্কেট ক্যাপ অনেক কম তাদের পেনি স্টক (Panny Stock) বলা হয়। এই কোম্পানিগুলি খুবই ছোট কোম্পানি এগুলি স্মল ক্যাপ কোম্পানির থেকেও ছোট কোম্পানি এই কোম্পানিগুলির শেয়ার সাধারণত ১০ টাকার কম হয়।

কেন বিনিয়োগকারীরা পেনি স্টকের দিকে বেশি আকৃষ্ট হয়

বিনিয়োগকারীরা যখন প্রথম শেয়ার মার্কেটে বিনিয়োগ করতে নামেন তখন তাদের হাতে বিনিয়োগ করার জন্য বেশি অর্থ থাকে না। কোন ব্যক্তি যদি ১০ হাজার টাকা নিয়ে শেয়ার মার্কেটে বিনিয়োগ করতে শুরু করেন তাহলে ওই ব্যক্তি কোন বড় কোম্পানির যার শেয়ার প্রাইজ ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকা তা দিয়ে যদি শেয়ার কেনে তাহলে হাতে গোনা ৫ থেকে ১০টা শেয়ার পাবে কিন্তু অপরপক্ষে যদি ওই ব্যক্তি ওই ১০ হাজার টাকা কোন পেনি স্টকে বিনিয়োগ করে অর্থাৎ যে কোম্পানিগুলির শেয়ার মূল্য ২ টাকা থেকে ৫ টাকা তাহলে ওই ব্যক্তি ১ হাজার থেকে ৫ হাজারটা শেয়ার কিনতে পারবে। আর মানুষের সাইকোলজি এটাই যে আমরা কম টাকার মধ্য বেশি জিনিস পেতে চায়। তাই বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী বিনিয়োগের শুরুতে পেনি স্টকে বিনিয়োগের জন্য আকৃষ্ট হয়ে পড়ি।

এছাড়াও বিনিয়োগকারীদের পেনি স্টকে বিনিয়োগের জন্য আকৃষ্ট হওয়ার আর একটা কারন, ধরেনিন কোনো পেনি স্টকের মূল্য ৫ টাকা, সেই ৫ টাকা ১০ টাকা হতে যে সময় লাগবে তা খুবই অল্প কিন্তু কোন বড় কোম্পানির শেয়ার যার মূল্য ধরুন 5000 কিংবা ১০ হাজার টাকা। তা ডবল হতে অনেক বছর সময় লাগবে। তাই অনেকেই কম সময়ের মধ্যে বেশি শেয়ার ক্রয় করে বেশি লাভের আশায় পেনি স্টকে বিনিয়োগ করে।

আরোও পড়ুন » Options Trading: সহজ বাংলা ভাষায় অপশন ট্রেডিং বুঝুন, মোটা টাকা আয় করার একটি রাস্তা

পেনি স্টকে বিনিয়োগের সুবিধা (Advantage)

পেনি স্টকে বিনিয়োগের সবচেয়ে বড় Advantage হল এই সকল কোম্পানিগুলোর গ্রোথ খুব বেশি লার্জ ক্যাপ কোম্পানির তুলনায়। কারণ লার্জ ক্যাপ কোম্পানিগুলি তাদের অবস্থানে লিড করছে অর্থাৎ অলরেডি অনেকটা পরিমাণ গ্রোথ হয়ে গিয়েছে। অপরপক্ষে ছোট কোম্পানিগুলির গ্রোথের সম্ভাবনা প্রবল কারণ সেই কোম্পানিগুলি ছোট রয়েছে তাই সেগুলি বড় কোম্পানিতে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা রাখে। এবং এই ছোট স্টকগুলি পরবর্তীতে মাল্টিবেগার স্টকে পরিণত হয় কিন্তু এক্ষেত্রে অবশ্যই মনে রাখবেন যে এরকম স্টক খুঁজে বের করা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং।

অবশ্যই পড়ুন » Stock Market Tips: শেয়ার বাজারে টাকা বিনিয়োগ করেন? মেনে চলুন এই 5 টি টিপস! বিনিয়োগ করার আগে অবশ্যই জেনেনিন।

পেনি স্টকে বিনিয়োগের অসুবিধা (disadvantage)

(১) অনেকেই মনে করেন যে যদি 5 টাকার কোন পেনি স্টকে বিনিয়োগ করেন তাহলে ওই শেয়ারের দাম ১০ টাকা ২০ টাকা এবং এর উপরে হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু এই ৫ টাকা স্টকের মূল্য কমে সর্বনিম্ন শূন্য হতে পারে। তাই অনেকেই মনে করেন কম হওয়ার তুলনায় বেশি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে তাই অনেকেই পেনি স্টকে বিনিয়োগ করেন। কিন্তু এক্ষেত্রে এই ধারণাটি ভুল ৫ টাকার পেনি স্টকের মূল্য ১০ টাকা হওয়ার তুলনায় সেই স্টকের মূল্য ২ টাকা ১ টাকা থেকে শূন্যতে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। অতীতে এরকম অনেক পেনি স্টক বাজার থেকে একেবারে উঠে গিয়েছে। তাই পেনি স্টকে বিনিয়োগ করার আগে অবশ্যই মনে রাখবেন পেনি স্টকে বিনিয়োগ সব থেকে বেশি রিস্কের বা ঝুঁকিপূর্ণ।

(২) অনেকেই রয়েছে যারা পেনি স্টক থেকে দূরে থাকেন তাই আপনি যদি কোন পেনি স্টক কেনেন এবং সেই স্টকটির মূল্য বৃদ্ধি পায় এবং সেই স্টকটি আপনি যদি বিক্রি করতে চান তাহলে দেখবেন বিক্রি করার জন্য লোক পাচ্ছেন না এবং আপনি ওই স্টকটি নিয়ে ফেঁসে থাকবেন।

মিস করবেন না » Stock market: জেনেনিন শেয়ার বাজারে দীর্ঘ সময়ের জন্য বিনিয়োগ করে টাকা আয় করার উপায়

(৩) আমরা যখন কোন স্টকে বিনিয়োগ করতে চায় তখন আমরা সেই কোম্পানি সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে রিসার্চ করে থাকি। কিন্তু আপনি যদি একটি পেনি স্টকে বিনিয়োগ করতে চান এবং ওই স্টক সম্পর্কে রিসার্চ করতে চান সেক্ষেত্রে আপনি ইন্টারনেট বা বিভিন্ন তথ্যসূত্রে খুব কম তথ্য পাবেন ওই কোম্পানি সম্পর্কে তাই সেক্ষেত্রে আপনার কোম্পানি সম্পর্কে এনালাইসিস করা খুব কঠিন হয়ে পড়বে।

পেনি স্টকে বিনিয়োগ করা কি উচিত

পেনি স্টকে টাকা বিনিয়োগ করার যেরকম সুবিধা রয়েছে সেরকম বেশ খুশি অসুবিধাও রয়েছে তবুও আপনি যদি পেনি স্টকে বিনিয়োগ করতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনি আপনার পোর্টফলিওর খুবই কম অংশ বিনিয়োগ করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি ততটুকুই টাকা বিনিয়োগ করবেন যে টাকা আপনার লস হয়ে গেলেও আপনার উপর কোন প্রভাব পড়বে না।

অবশ্যই পড়ুন » Share Market: টেকনিক্যাল এনালাইসিস করে ভাল শেয়ার কেনার কৌশল, শেয়ার বাজারে থেকে ধনী হতে সাহায্য করবে

এই ধরনের অর্থনীতি সম্পর্কিত তথ্য সহজ বাংলা ভাষায় পেতে আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন 👇

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপJoin Us
আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলFollow Us
আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলJoin Us
আমাদের ফেসবুক পেজFollow Us
Google নিউজে ফলো করুনFollow Us

Disclaimer~

শেয়ার বাজারের বিনিয়োগ সর্বদা ঝুঁকিপূর্ণ। তাই ফাইনান্স বার্তা কখনোই কোন ব্যক্তিকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করার জন্য প্রোরচনা বা জোর করে না। এই প্রতিবেদনটি শুধুমাত্র বিনিয়োগকারীদের তথ্য এবং জ্ঞানের উদ্দেশ্য দেওয়া হয়েছে তাই কোন বিনিয়োগকারী যদি বিনিয়োগ করতে চাই তাহলে অবশ্যই ওই বিনিয়োগকারী নিজের ঝুঁকিতে বিনিয়োগ করতে পারে।

3 thoughts on “Penny Stock: পেনি স্টক কি? জানুন এর আসল সত্য! বিনিয়োগ করা কি উচিত দেখে নিন বিস্তারিত”

Leave a Comment