শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

Atal Pension Yojana 2024: মাসে ৫০০০ টাকা পেনশন! জানুন – অটল পেনশন যোজনা কি? এবং আবেদন পদ্ধতি

Photo of author

By Joydeep

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

Atal Pension Yojana In Bengali 2024: আপনি চাকরি না করেও প্রতিমাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের পেনশন পেতে পারবেন। যে সমস্ত লোক চাকরি করেনা ছোটখাটো কাজ করে জীবনযাপন করে তাদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় সরকার অটল পেনশন যোজনা (APY) শুরু করেছে। এই প্রকল্পের অধীনে আপনি ৬০ বছর বয়স পূর্ণ হওয়ার পর মাসে মাসে পেনশন পাবেন। অটল পেনশন যোজনায় কি কি সুবিধা রয়েছে? করা করা আবেদন করতে পারবেন? এই প্রকল্পে আপনাকে কতো টাকা বিনিয়োগ করতে হবে? এবং কিভাবে আবেদন করবেন এই নিয়েই আজকের এই নিবন্ধ। 

বিষয় সূচী ~

অটল পেনশন যোজনা কি? (Atal Pension Yojana) 

অটল পেনশন যোজনা দ্বারা সরকারি চাকরি বা কোনো স্বীকৃত সংস্থায় চাকরি না করা ব্যাক্তিদের পেনশন প্রদান করা হয়। এই প্রকল্পটি সর্বপ্রথম ১ জুন ২০১৫ সালে ভারত সরকার দ্বারা শুরু করা হয়েছিল। এখন থেকে পেনশন পাওয়ার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ ধারাবাহিক ভাবে বিনিয়োগ করতে হবে। এরপর আপনার যখন ৬০ বছর বয়স পূর্ণ হবে তখন আপনি প্রতিমাসে ১০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পাবেন। এই প্রকল্পটির ছোট দোকান বা ব্যাবসায়ী, ড্রাইভার, চাষী অর্থাৎ অল্প রোজগার সম্পন্ন ব্যাক্তিদের অবসর জীবনে আর্থিক সহায়তা প্রদান করাই মূল উদ্দেশ্য। 

কারা কারা আবেদন করতে পারবেন? (Eligibility of Atal Pension Yojana)

অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana) প্রকল্পে আবেদন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একজন ভারতীয় নাগরিক হতে হবে। ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সের ব্যক্তিরাই এই পরাকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন। কোনো রকম সরকারি চাকরি বা কোনো স্বীকৃত সংস্থায় চাকরি করলে এখানে আবেদন করতে পারবেন না। অটল পেনশন যোজনা শুধুমাত্র তাদের জন্য যাদের ইনকাম ট্যাক্স দেওয়ার প্রয়োজন হয় না। অর্থাৎ শুধুমাত্র নিম্ন আয় সম্পন্ন ব্যক্তিরাই এতে আবেদন করতে পারবেন। যেমন আপনি যদি একজন কৃষক, ছোট ব্যাবসায়ী, রিক্সা চালক বা এই ধরেনের কম রোজগারের কাজ করে জীবনযাপন করছেন তাহলেই আবেদন করতে পারবেন।

মাসে কতো টাকা পেনশন পাবেন? 

অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana) প্রকল্পের সাবস্ক্রাইবার হবার পর আপনাকে ধারাবাহিকভাবে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে। এরপর আপনার ৬০ বছর পূর্ণ হলে প্রতিমাসে আপনি পেনশন পাবেন। এখানে প্রাইমাসে ১০০০ টাকা, ২০০০ টাকা, ৩০০০ টাকা, ৪০০০ টাকা এবং ৫০০০ টাকা পেনশনের বিকল্প রয়েছে। যখন আবেদন করবেন তখন আপনার পছন্দ মত পেনশনের পরিমাণ বেছে নিতে পারবেন। এখানে বেশি পেনশনের জন্য বেশি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। কতো টাকা বিয়োগ করলে কতো পেনশন পাবেন তা নিচে ছকের মাধ্যমে উল্লেখ করা হয়েছে।

অটল পেনশন যোজনার সুবিধা ও বৈশিষ্ট্য (Benifit of Atal Pension Yojana) 

এই প্রকল্পের অধীনে আপনি একাধিক সুবিধা পাবেন। আপনি চাকরি না করেও ৬০ বছর পর নিয়মিত পেনশন পাবেন। ৬০ বছর পূর্ণ হবার গেই আপনি চাইলে এই প্রকল্প বন্ধ করতে পারবেন। আপনি আপনার পরিবারের বা আপনার প্রিয় কাউকে নমিনি রাখতে পারবেন। এছাড়াও বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে, যেগুলি নিচে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে – 

  • নিয়মিত পেনশন: এই প্রকল্প সাবস্ক্রাইব করার ফলে আপনি অবাসর জীবনে নিয়ায়মিত পেনশন পাবেন। এর পরে অবাসার জীবনে আপনি স্বনির্ভর থাকতে থাকতে পারবেন। 
  • পেনশনের একাধিক বিকল্প: আপনি প্রতিমাসে ১০০০, ২০০০, ৩০০০, ৪০০০ এবং ৫০০০ টাকা পেনশনের বিকল্প পাবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে বেশি পেনশনের জন্য বেশি টাকা জমা করতে হবে। 
  • কিস্তি জমার একাধিক বিকল্প: আপনি অটল পেনশন যোজনা তে কিস্তি জমা করার জন্য একাধিক বিকল্প পাবেন। মাসিক, ত্রৈমাসিক বা অর্ধবার্ষিক ভিত্তিতে কিস্তি জমা করতে পারেন। 
  • কিস্তির পরিমাণ পরিবর্তন: এই স্কিন চলাকালীন আপনি আপনার কিস্তির পরিমাণ পরিবর্তন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি খিস্তি কমালে কম পেনশন পাবেন এবং কিস্তি বাড়ালে বেশি পেনশন পাবেন। 
  • স্বয়ংক্রিয় কিস্তি জমা: Atal Pension Yojana-তে আপনাকে প্রতিমাসে গিয়ে কিস্তি দিতে হবে না। এই স্কিম সাবস্ক্রাইব করার পর স্বয়ংক্রিয় ভাবে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে কিস্তির টাকা কেটে নেওয়া হবে। 
  • নমিনির সুবিধা: যদি আপনার মৃত্যু ৬০ বছরের পূর্বে হয়ে এক্ষেত্রে এই স্কিমের সুবিধা আপনার নির্বাচন করার নমিনি পাবেন। পরোক্ষভাবে আপনার নির্বাচন করা নবীনিকে আর্থিক সহায়তা করা হবে। 
  • স্কিম বন্ধ করার সুবিধা: আপনি যদি ষাট বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বেই এই স্কিন বন্ধ করতে চান তাহলে বন্ধ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র আপনার জমা করা টাকায় আপনি ফেরত পাবেন। ক্যান্সার, কিডনি ব্যর্থতা, গুরুতর হৃদরোগ ইত্যাদির ক্ষেত্রে আপনি এই স্কিম বন্ধ করতে পারেন। 
  • কর ছাড়: ধারা 80CCD (1B) ধারা 80 CCD(1b) এর অধীনে, এই প্রকল্পে টাকা বিনিয়োগ করলে কর ছাড় পাওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুন: অনলাইনে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন নিন মাত্র ২ মিনিটে, জেনেনিন সম্পূর্ন পদ্ধতি।

আরও পড়ুন: UPStock অ্যাপ থেকে এইভাবে বিনামূল্যে ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট খুলুন।

অটল পেনশন যোজনার অসুবিধা (Disadvantage of Atal Pension Yojana) 

অটল পেনশন যোজনার যেকোন অনেক সুবিধা রয়েছে, তেমনি কিছু অসুবিধাও রয়েছে। যেগুলি আবেদন করার আগে আপনার জানা আবশ্যক। 

অটল পেনশন যোজনার অসুবিধা ~ 

  • প্রকল্প চলাকালীন বন্ধ করতে চাইলে শুধুমাত্র আপনার বিনিয়োগ করার টাকা ফেরত পাবেন। বাড়তি কোনো টাকা দেওয়া হবে না। 
  • পর পর ৬ মাস কিস্তি জমা না দিলে অ্যাকাউন্ট সিল করে দেওয়া হবে। 
  • একবছর টাকা জমা না করলে আপনার অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় হয়ে যাবে। 
  • আপনি যদি কর্মচারীদের ভবিষ্যত তহবিল এবং বিবিধ বিধান আইন (১৯৫২ EPF), কয়লা খনি প্রভিডেন্ট ফান্ড এবং বিবিধ বিধান আইন (১৯৪৮), সীমেনস প্রভিডেন্ট ফান্ড অ্যাক্ট (১৯৬৬), আসাম চা বাগান ভবিষ্যত তহবিল এবং পেনশন তহবিল স্কিম আইন (১৯৫৫), জম্মু ও কাশ্মীর কর্মচারী ভবিষ্য তহবিল আইন (১৯৬১) বা অন্য কোন সংবিধিবদ্ধ সামাজিক নিরাপত্তা প্রকল্পের উপভক্তা হন তাহলে আবেদন করতে পারবেন না।

কিভাবে আবেদন করবেন? 

আপনারা যেকোনো সরকারি ব্যাঙ্ক বা বেশ কিছু প্রাইভেট ব্যাঙ্কে থেকে আটল পেনশন যোজনার জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার জন্য আপনাকে নিকটবর্তী ব্যাঙ্কের শাখায় জযেহেতু আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে কিস্তির টাকা কেটে নেওয়া হবে, তাই যে ব্যাংক থেকে আপনি অটল পেনশন যোজনার জন্য আবেদন করতে চান, ওই ব্যাঙ্কে আপনার সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাক প্রয়োজন। অটল পেনশন যোজনা সাবস্ক্রাইব করার জন্য অ্যাকাউন্ট নাম্বার, আধার নম্বর এবং মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। আবেদন করার সময় আপনাকে কিস্তির টাকা কাটার তারিখ এবং মাসিক, ত্রৈমাসিক নাকি অর্ধবার্ষিক কিস্তি দিতে চান সেটি নির্বাচন করতে হবে। 

কতো টাকা বিনিয়োগ করতে হবে? 

এখানে আপনাকে ১৮ বছর বয়স থেকে ৪০ বছর বয়সের মধ্যে অটল পেনশন যোজনা সাবস্ক্রাইব করে বিনিয়োগ করতে হবে। এখানে আপনি যত কম থেকে বিনিয়োগ করবেন আপনার মাসিক কিস্তি তত কম লাগবে। এবং আপনি যদি বেশি বয়সে আবেদন করেন তাহলে আপনার মাসিক কিস্তির পরিমাণ বাড়বে। এছাড়াও আপনি যদি মাসিক কিস্তি দেন তাহলে আপনার কম টাকা লাগবে, এবং যদি ত্রৈমাসিক বা অর্ধবার্ষিক কিস্তি দেন সে ক্ষেত্রে আপনার বেশি টাকা লাগবে। ৬০ বছর বয়সের পর আপনি যদি ১০০০ টাকা পেনশন পেতে চান, তাহলে আপনার কিস্তির পরিমাণ কম হবে। বেশি পেনশন পেতে চাইলে আপনাকে কিস্তির পরিমাণও বাড়াতে হবে। প্রতিমাসে ১০০০ টাকা, ২০০০ টাকা, ৩০০০ টাকা, ৪০০০ টাকা এবং ৫০০০ টাকা পেনশনের জন্য আপনাকে মাসিক, ত্রৈমাসিক বা অর্ধবার্ষিক ভিত্তিতে কত টাকা কিস্তি পড়বে? তা নিচের ছকে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে।

কিস্তি জমা না করলে কি হবে?

কোনো কারণে আপনি আপনি যদি কোনো মাসে কিস্তি জমা করতে না পারেন, তাহলে অল্প কিছু জরিমানা দিয়ে আপনি অটল পেনশন যোজনা চালিয়ে যাতে পারবেন। পর পর ৬ মাস টাকা জমা করলে আপনার অ্যাকাউন্ট সিল করে দেওয়া হবে। ১ বছর টাকা জমা না দিলে অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় হয়ে যাবে এবং ২ বছর টাকা জমা না দিলে অ্যাকাউন্ট একেবারেই বন্ধ হয়ে যাবে।

আপনি যদি কোনো মাসে টাকা জমা না করেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে পরের মাসে কতো টাকা জরিমানা দিতে হবে? তা নিচের তালিকায় দেওয়া হলো –

  • কিস্তির পরিমাণ ১০০ টাকা পর্যন্ত হলে – প্রতিমাসে ১ টাকা জরিমানা লাগবে।
  • কিস্তির পরিমাণ ১০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে হয় তাহলে – প্রতিমাসে ২ টাকা জরিমানা দিতে হবে।
  • কিস্তির পরিমাণ ৫০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে হলে – প্রতিমাসে ৫ টাকা জরিমানা লাগবে।
  • কিস্তির পরিমাণ ১০০০ টাকার বেশি হলে – প্রতিমাসে ১০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

মাসে ১০০০ টাকা পেনশনের জন্য কিস্তির পরিমাণ –

অ্যাকাউন্ট খোলার বয়সমাসিক কিস্তির পরিমাণত্রৈমাসিক কিস্তির পরিমাণ আর্ধ বার্ষিক কিস্তির পরিমাণ
১৮ বছর৪২ টাকা১২৫ টাকা২৪৮ টাকা
১৯ বছর৪৬ টাকা১৩৭ টাকা২৭১ টাকা
২০ বছর৫০ টাকা১৪৯ টাকা২৯৫ টাকা
২১ বছর৫৪ টাকা১৬১ টাকা৩১৯ টাকা
২২ বছর৬৯ টাকা১৭৬ টাকা৩৪৮ টাকা
২৩ বছর৬৪ টাকা১৯১ টাকা৩৭৮ টাকা
২৪ বছর৭০ টাকা২০৯ টাকা৪১৩ টাকা
২৫ বছর৭৬ টাকা২২৬ টাকা৪৪৯ টাকা
২৬ বছর৮২ টাকা২৪৪ টাকা৪৮৪ টাকা
২৭ বছর৯০ টাকা২৬৮ টাকা৫৩১ টাকা
২৮ বছর৯৭ টাকা২৮৯ টাকা৫৮২ টাকা
২৯ বছর১০৬ টাকা৩১৬ টাকা৬২৬ টাকা
৩০ বছর১১৬ টাকা৩৪৬ টাকা৬৮৫ টাকা
৩১ বছর১২৬ টাকা৩৭৬ টাকা৭৪৪ টাকা
৩২ বছর১৩৮ টাকা৪১১ টাকা৮১৪ টাকা
৩৩ বছর১৫১ টাকা৪৫০ টাকা৮৯১ টাকা
৩৪ বছর১৬৫ টাকা৪৯২ টাকা৯৭৪ টাকা
৩৫ বছর১৮১ টাকা৫৩৯ টাকা১০৬৮ টাকা
৩৬ বছর১৯৮ টাকা৫৯০ টাকা১১৬৯ টাকা
৩৭ বছর২১৮ টাকা৬৬০ টাকা১২৮৭ টাকা
৩৮ বছর২৪০ টাকা৭১৫ টাকা১৪১৬ টাকা
৩৯ বছর২৬৪ টাকা৭৮৭ টাকা১৫৫৮ টাকা
অটল পেনশন যোজনা চার্ট

মাসে ২০০০ টাকা পেনশনের জন্য কিস্তির পরিমাণ –

অ্যাকাউন্ট খোলার বয়সমাসিক কিস্তির পরিমাণত্রৈমাসিক কিস্তির পরিমাণঅর্ধ বার্ষিক কিস্তির পরিমাণ
১৮ বছর৮৪ টাকা২৫০ টাকা৪৯৬ টাকা
১৯ বছর৯২ টাকা২৭৪ টাকা৫৪৩ টাকা
২০ বছর১০০ টাকা২৯৮ টাকা৫৯০ টাকা
২১ বছর১০৮ টাকা৩২২ টাকা৬৩৭ টাকা
২২ বছর১১৭ টাকা৩৪৯ টাকা৬৯০ টাকা
২৩ বছর১২৭ টাকা৩৭৮ টাকা৮৪৯ টাকা
২৪ বছর১৩৯ টাকা৪১৪ টাকা৮২০ টাকা
২৫ বছর১৫১ টাকা৪৫০ টাকা৮৯১ টাকা
২৬ বছর১৬৪ টাকা৪৮৯ টাকা৯৬৮ টাকা
২৭ বছর১৭৮ টাকা৫৩০ টাকা১০৫০ টাকা
২৮ বছর১৯৪ টাকা৫৭৮ টাকা১১৪৫ টাকা
২৯ বছর২১২ টাকা632 টাকা১২৫১ টাকা
৩০ বছর২৩১ টাকা৬৮৮ টাকা১৩৬৩ টাকা
৩১ বছর২৫২ টাকা৭৫১ টাকা১৪৮৭ টাকা
৩২ বছর২৭৬ টাকা৮২৩ টাকা১৬২৯ টাকা
৩৩ বছর৩০২ টাকা৯০০ টাকা১৭৮২ টাকা
৩৪ বছর৩৩০ টাকা৯৮৩ টাকা১৯৪৮ টাকা
৩৫ বছর৩৬২ টাকা১০৭৯ টাকা২১৩৬ টাকা
৩৬ বছর৩৯৬ টাকা১১৮০ টাকা২৩৩৭ টাকা
৩৭ বছর৪৩৬ টাকা১২৯৯ টাকা২৫৭৩ টাকা
৩৮ বছর৪৮০ টাকা১৪৩০ টাকা২৮৩৩ টাকা
৩৯ বছর৫২৮ টাকা১৫৭৪ টাকা৩১১৬ টাকা
অটল পেনশন যোজনা চার্ট

মাসে ৩০০০ টাকা পেনশনের জন্য কিস্তির পরিমাণ –

অ্যাকাউন্ট খোলার বয়সমাসিক কিস্তির পরিমাণত্রৈমাসিক কিস্তির পরিমাণঅর্ধ বার্ষিক কিস্তির পরিমাণ
১৮ বছর১২৬ টাকা৩৭৬ টাকা৭৪৪ টাকা
১৯ বছর১৩৮ টাকা৪১১ টাকা৮১৪ টাকা
২০ বছর১৫০ টাকা৪৪৭ টাকা৮৮৫ টাকা
২১ বছর১৬২ টাকা৪৮৩ টাকা৯৫৬ টাকা
২২ বছর১৭৭ টাকা৫২৭ টাকা১০৪৬ টাকা
২৩ বছর১৯২ টাকা৫৭২ টাকা১১৩৩ টাকা
২৪ বছর২০৮ টাকা৬২০ টাকা১২২৮ টাকা
২৫ বছর২২৬ টাকা৬৭৪ টাকা১৩৩৪ টাকা
২৬ বছর২৪৬ টাকা৭৩৩ টাকা১৪৫২ টাকা
২৭ বছর২৬৮ টাকা৭৯৯ টাকা১৫৮২ টাকা
২৮ বছর২৯২ টাকা৮৭০ টাকা১৭২৩ টাকা
২৯ বছর৩১৮ টাকা৯৪৮ টাকা১৮৭৭ টাকা
৩০ বছর৩৪৭ টাকা১০৩৪ টাকা২০৪৮ টাকা
৩১ বছর৩৭৯ টাকা১১২৯ টাকা২২৩৭ টাকা
৩২ বছর৪১৪ টাকা১২৩৪ টাকা২৪৪৩ টাকা
৩৩ বছর৪৫৩ টাকা১৩৫০ টাকা২৬৭৩ টাকা
৩৪ বছর৪৯৫ টাকা১৪৭৫ টাকা২৯২১ টাকা
৩৫ বছর৫৪৩ টাকা১৬৮১ টাকা৩২০৫ টাকা
৩৬ বছর৫৯৪ টাকা১৭৭০ টাকা৩৫০৬ টাকা
৩৭ বছর৬৫৪ টাকা১৯৯৪ টাকা৩৮৬০ টাকা
৩৮ বছর৭২০ টাকা২১৪৬ টাকা৪২৪৯ টাকা
৩৯ বছর৮৯২ টাকা২৩৬০ টাকা৪৬৭৪ টাকা
অটল পেনশন যোজনা চার্ট

মাসে ৪০০০ টাকা পেনশনের জন্য কিস্তির পরিমাণ –

অ্যাকাউন্ট খোলার বয়সমাসিক কিস্তির পরিমাণত্রৈমাসিক কিস্তির পরিমাণঅর্ধ বার্ষিক কিস্তির পরিমাণ
১৮ বছর১৬৮ টাকা৫০১ টাকা৯৯১ টাকা
১৯ বছর১৮৩ টাকা৫৪৫ টাকা১০৮০ টাকা
২০ বছর১৯৮ টাকা৫৯০ টাকা১১৬৯ টাকা
২১ বছর২১৫ টাকা৬৪১ টাকা১২৬৯ টাকা
২২ বছর২৩৪ টাকা৬৯৭ টাকা১৩৮১ টাকা
২৩ বছর২৫৪ টাকা৫৭৫ টাকা১৪৯৯ টাকা
2৪ বছর২৭৭ টাকা৮২৬ টাকা১৬৩৫ টাকা
২৫ বছর৩০১ টাকা৮৯৭ টাকা১৭৭৬ টাকা
২৬ বছর৩২৭ টাকা৯৭৫ টাকা১৯৩০ টাকা
২৭ বছর৩৫৬ টাকা১০৬১ টাকা২১০১ টাকা
২৮ বছর৩৮৮ টাকা১১৫৬ টাকা২২৯০ টাকা
২৯ বছর৪২৩ টাকা১২৬১ টাকা২৪৯৬ টাকা
৩০ বছর৪৬২ টাকা১৩৭৭ টাকা২৭২৭ টাকা
৩১ বছর৫০৪ টাকা১৫০২ টাকা২৯৭৪ টাকা
৩২ বছর৫৫১ টাকা১৬৪২ টাকা৩২৫২ টাকা
৩৩ বছর৬০২ টাকা১৭৯৪ টাকা৩৫৫৩ টাকা
৩৪ বছর৬৫৯ টাকা১৯৬৪ টাকা৩৮৮৯ টাকা
৩৫ বছর৭২২ টাকা২১৫২ টাকা৪২৬১ টাকা
৩৬ বছর৭৯২ টাকা২৩৬০ টাকা৪৬৭৪ টাকা
৩৭ বছর৮৭০ টাকা২৫৯৩ টাকা৫১৩৪ টাকা
৩৮ বছর৯৫৭ টাকা২৮৫২ টাকা৫৬৪৮ টাকা
৩৯ বছর১০৫৪ টাকা৩১৪১ টাকা৬২২০ টাকা
অটল পেনশন যোজনা চার্ট

মাসে ৫০০০ টাকা পেনশনের জন্য কিস্তির পরিমাণ –

অ্যাকাউন্ট খোলার বয়সমাসিক কিস্তির পরিমাণত্রৈমাসিক কিস্তির পরিমাণঅর্ধ বার্ষিক কিস্তির পরিমাণ
১৮ বছর২১০ টাকা৬২৬ টাকা১২৩৯ টাকা
১৯ বছর২২৪ টাকা৬৭৯ টাকা১৩৪৬ টাকা
২০ বছর২৪৮ টাকা৭৩৯ টাকা১৪৬৪ টাকা
২১ বছর২৬৯ ​​টাকা৮০২ টাকা১৫৮৮ টাকা
২২ বছর২৯২ টাকা৮৭০ টাকা১৭২৩ টাকা
২৩ বছর৩১৮ টাকা৯৪৮ টাকা১৮৭৭ টাকা
২৪ বছর৩৪৬ টাকা১০৩১ টাকা২০২৪ টাকা
২৫ বছর৩৭৬ টাকা১১২১ টাকা২২১৯ টাকা
২৬ বছর৪০৯ টাকা১২১৯ টাকা২৪১৪ টাকা
২৭ বছর৪৪৬ টাকা১৩২৯ টাকা২৬৩২ টাকা
২৮ বছর৪৮৫ টাকা১৪৪৫ টাকা২৮৬৩ টাকা
২৯ বছর৫২৯ টাকা১৫৭৭ টাকা৩১২২ টাকা
৩০ বছর৫৭৭ টাকা১৭২০ টাকা৩৪০৫ টাকা
৩১ বছর৬৩০ টাকা১৮৭৮ টাকা৩৭১৮ টাকা
৩২ বছর৬৮৯ টাকা২০৫৩ টাকা৪০৬৬ টাকা
৩৩ বছর৭৫২ টাকা২২৪১ টাকা৪৪৩৮ টাকা
৩৪ বছর৮২৪ টাকা২৪৫৬ টাকা৪৮৬৩ টাকা
৩৫ বছর৯০২ টাকা২৬৮৮ টাকা৫৩২৩ টাকা
৩৬ বছর৯৯০ টাকা২৯৫০ টাকা৫৮৪৩ টাকা
৩৭ বছর১০৮৭ টাকা৩২৩৯ টাকা৬৪১৫ টাকা
৩৮ বছর১১৯৬ টাকা৩৫৬৪ টাকা৭০৫৮ টাকা
৩৯ বছর১৩১৮ টাকা৩৯২৮ টাকা৭৭৭৮ টাকা
অটল পেনশন যোজনা চার্ট

উপসংহার ~

এই নিবন্ধের মধ্যে অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana) সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এই প্রকল্পের সুবিধা, অসুবিধা, অবসর জীবনে মাসে কতো টাকা পেনশন দেয়? কিভাবে আবেদন করতে পারবেন? করা করা আবেদন করতে পারবেন? মাসে কত টাকা কিস্তি জমা করতে হবে? কিস্তি জমা না করলে কি হবে? এই সব বিষয়ে উপরে বিস্তারিত তথ্য প্রদান করা হয়েছে।

এই ধরনের অর্থনীতি সম্পর্কিত তথ্য সহজ বাংলা ভাষায় পেতে আমাদের টেলিগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হন 👇

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপJoin Us
আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপJoin Us
আমাদের ফেসবুক পেজFollow Us
Google নিউজে ফলো করুনFollow Us

F.A.Q.

অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana) কী?

অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana) ভারত সরকারের একটি প্রকল্প, এতে নিম্ন আয় সম্পন্ন ব্যাক্তিদের ৬০ বছর বয়স পূর্ণ হলে প্রতিমাসে পেনশন দেওয়া হয়।

অটল পেনশন যোজনায় মাসে কত টাকা পেনশন পাবো?

অটল পেনশন যোজনায় প্রতিমাসে ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পাবেন।

কতো বছর বয়স পর্যন্ত অটল পেনশন যোজনায় আবেদন করতে পারবো?

১৮ বছর থেকে ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত অটল পেনশন যোজনায় আবেদন করতে পারবেন।

অটল পেনশন যোজনার ফর্ম কোথায় পাবো?

যেকোনো স্বীকৃত ব্যাঙ্কের শাখায় গিয়ে অটল পেনশন যোজনার ফর্ম সংগ্রহ করতে পারেন।

11 thoughts on “Atal Pension Yojana 2024: মাসে ৫০০০ টাকা পেনশন! জানুন – অটল পেনশন যোজনা কি? এবং আবেদন পদ্ধতি”

Leave a Comment