শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

Business Idea: টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা মাসে ৫০ হাজার টাকার অধিক আয় করুন, রইল সম্পূর্ন পদ্ধতি

Photo of author

By Joydeep

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

Business Idea: আপনি যদি কোনো ব্যাবসা শুরু করার কথা ভাবছেন তাহলে, টি-শার্ট প্রিন্টিং এর ব্যাবসা (T-Shirt Printing Business) ঘরে বসেই শুরু করতে পারেন। বর্তমানের এই ফ্যাশনের যুগে টি-শার্ট এর চাহিদা কতটা সেটি নিশ্চই জানেন। আপনি কিছু টাকা বিনিয়োগ করেই এই ব্যাবসা শুরু করতে পারেন, এবং প্রতিমাসে ৫০ হাজার টাকা অধিক আয় করতে পারেন। এই ব্যাবসার শুরু করার সম্পূর্ন পদক্ষেপ জানতে পুরো নিবন্ধটি পড়ুন। 

টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা (T-Shirt Printing Business) 

টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা (T-Shirt Printing Business) আপনি নিজের বাড়িতেই শুরু করতে পারেন। এতে আপনাকে প্লেন টি-শার্ট কারখানা ব হোলসেলার এর কাছ থেকে সল্পমুল্যে কিনে তাতে ভালো ডিজাইন প্রিন্ট করে বাজারে বিক্রি করতে হবে। এতে আপনাকে শুধুমাত্র প্রিন্টিং এর কাজ করতে হবে। যার জন্য আপনাকে একটি কিছু অর্থ বিনিয়োগ করে প্রিন্টিং মেশিন কিনতে হবে। এরপর টি-শার্টের উপর পছন্দমত ডিজাইন প্রিন্ট করে বাজারে বিক্রি করতে হবে। আপনি চাইলে অনলাইনেও বিক্রি করতে পারেন। 

কিভাবে টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা শুরু করতে হবে?

টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা (T-Shirt Printing Business) শুরু করার জন্য প্রথমে আপনাকে একটি প্রিন্টিং মেশিন, একটি হিট প্রেস, কাগজ এবং কম্পিউটার কিনতে হবে। এরপর আপনাকে কোনো টি-শার্ট কারখানা থেক বা, হোলসেলারের কাছ থেকে থেক প্লেন টি-শার্ট কিনতে হবে। এরপর তার উপর একম কিছু ডিজাইন প্রিন্ট করতে হবে যেগুলি বাজারে নতুন এবং ইউনিক। কারণ আপনার প্রিন্ট করা ডিজাইন ভালো না হলে বিক্রি করা কঠিন হয়ে যাবে। টি-শার্ট প্রিন্ট হয়েগেল আপনি বাজারে বিক্রি করে পারেন, অথবা আপনি অনলাইনেও বিক্রি করতে পারেন। 

বিভিন্ন ই-কমার্স সাইট রয়েছে যেখানে আপনি প্রিন্ট করা টি-শার্ট বিক্রি করতে পারবেন। যেমন: আমাজন, ফ্লিপকার্ট, মেশো ইত্যাদি। এই সমস্ত প্ল্যাটফর্মে সেলার অ্যাকাউন্ট তৈরি করে আপনি বিক্রি করতে পাবেন। আপনার ডিজাইন এবং প্রোডাক্ট ভালো হলে খদ্দরের সেখানে ভালো রেটিং দেবে। এবং আপনার প্রোডাক্ট এর রেটিং ভালো হলে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রচুর অর্ডার পাবেন, যা আপনি পরিকল্পনাও করতে পারবেন না। 

আরও পড়ুন: Business Idea – বাড়িতে ফেলে দেওয়া এই দ্রব্য দিয়ে তৈরি করুন ব্যাবসা, প্রতিমাসে আয় ১০,০০০ টাকা।

এই ব্যাবসা শুরু করতে কতো খরচ হবে? 

এই ব্যাবসার শুরু করার জন্য প্রিন্টিং মেশিন, একটি হিট প্রেস, কাগজ এবং কম্পিউটার কিনতে হবে। এরপর আপনাকে প্লেন টি-শার্টও কিনতে হবে। যার জন্য আপনাকে ৩-৪ লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। আপনি কম মূল্যেই প্রিন্টিং মেশিন কিনলে একসঙ্গে একটি মাত্র টি-শার্ট প্রিন্ট করতে পারবেন। আরও দামি অটোমেশন প্রিন্টিং মেশিন কিনতে চাইলে আপনাকে আরও বেশি অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে। 

আরও পড়ুন: Business Idea – বাড়িতে বসেই মাসে ৫০,০০০ টাকা আয়! শুরু করুন এই বিনা পুঁজির ব্যাবসা।

টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসাতে কতো টাকা আয় হবে? 

এতে আপনার যত পরিমাণ প্রোডাক্ট বিক্রি হবে ততো বেশি আয় হবে। একটি প্লেন টি-শার্টের মূল্য প্রায় ১২০ টাকা পড়বে। এবং প্রিন্ট করার খরচ পড়বে ১ টাকা থেক ১০ টাকা, সূক্ষ্ম মুদ্রণ করতে গেলে খরচ পড়বে ২০ থেক ৩০ টাকা। এরপর আপনি সেটি বাজারে ২৫০ টাকা থেক ৩০০ টাকা মূল্যে বিক্রি করতে পারবেন। অর্থাৎ, আপনার খরচের তুলনায় দ্বিগুণ মূল্যে বিক্রি করতে পারবেন।আপনি যদি বাজারে বা অনলাইনে বিক্রি না করে, কোনো হোলসেলারকে বিক্রি করেন তাহলে আপনাকে পাইকারি মূল্যে বিক্রি করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার লাভ কম হবে। আপনি যদি প্রতিমাসে ৫০০ টি টি-শার্টও বিক্রি করেন তাহলে প্রতিমাসে ৫০ হাজার টাকার অধিক আয় করতে পারবেন। 

আরও পড়ুন: Make Money Online: অনলাইন থেকে ঘরে বসে আয় করুন লক্ষ লক্ষ টাকা, দেখে নিন ৫টি কার্যকরী উপায়।

উপসংহার 

আপনি যদি নতুন কোনো ব্যাবসা শুরু করার কথা ভাবছেন তাহলে, টি-শার্ট প্রিন্টিং এর ব্যাবসা (T-Shirt Printing Business) শুরু করে প্রতিমাসে ৫০ হাজার টাকার অধিক আয় করতে পারেন। প্রিন্টিং মেশিন, একটি হিট প্রেস, কাগজ এবং কম্পিউটার কিনে আপনি বাড়ি থেকেই এই ব্যাবসা শুরু করতে পারবেন। 

এই ধরনের অর্থনীতি সম্পর্কিত তথ্য সহজ বাংলা ভাষায় পেতে আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন 👇

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপJoin Us
আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলFollow Us
আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলJoin Us
আমাদের ফেসবুক পেজFollow Us
Google নিউজে ফলো করুনFollow Us

2 thoughts on “Business Idea: টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যাবসা মাসে ৫০ হাজার টাকার অধিক আয় করুন, রইল সম্পূর্ন পদ্ধতি”

Leave a Comment