শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

E-Shram Card: ই-শ্রম কার্ড থাকলেই পাবেন মাসে ৩০০০ টাকা! কেন্দ্রের বিরাট ঘোষণা, জেনেনিন আবেদন করার পদ্ধতি

Photo of author

By Joydeep

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

E-Shram Card: কেন্দ্রীয় সরকারের ই-শ্রম প্রকল্পে নাটিভুক্ত থাকলেই পাবেন এখাধিক সুবিধা। আপনিও যদি একজন অসংগঠিত কর্মী হয়ে থাকেন তাহলে ই-শ্রম কার্ড বানাতে পারবেন। এর জন্য আপনার বয়স ১৬ বছর থেক ৫৯ বছরের মধ্যে হতে হবে। প্রতিমাসে ৩০০০ টাকা এবং আরও বিভিন্ন ধরনের সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন এই প্রকল্পের মাধ্যমে। বিস্তারিত তথ্য পেতে অবশ্যই সম্পূর্ন নিবন্ধটি পড়ুন।

ই-শ্রম কার্ড (E-Shram Card)

অসংগঠিত শ্রেণীর কর্মীদের সামাজিক নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার দ্বারা এই প্রকল্প শুরু করা হয়েছিল। এই প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার ভারতের সমস্ত অসংগঠিত শ্রেণীর শ্রমিকদের ডাটাবেস সংগ্রহ করে বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প সুবিধা পেতে সাহায্য করবে।

আপনি যদি একজন অসংগঠিত শ্রেণীর শ্রমিক হয়ে থাকেন তাহলে অনলাইনের মাধ্যমে এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। ই-শ্রম কার্ড বানালে আপনি অবসরপ্রাপ্ত বয়সে পেনশন, স্বাস্থ্য বীমা, জীবন বীমা এবং এই ধরনের একাধিক সুবিধা পাবেন।

মাসে ৩০০০ টাকা সঙ্গে একাধিক সুবিধা

ই-শ্রম প্রকল্পে নতিভুক্ত শ্রমিকরা, অর্থাৎ যে সমস্ত ব্যাক্তিদের ই-শ্রম কার্ড রয়েছে তারা ৬০ বছর পূর্ন হবার পর প্রতিমাসে ৩০০০ টাকা পেনশন পাবেন, যা অবসরপ্রাপ্ত বয়সে আর্থিক পরিস্তিতি উন্নতি করতে সাহায্য করবেন। কোনো শ্রমিক আংশিক প্রতিবন্ধীতার শিকার হলে ১,০০,০০০ টাকা আর্থিক সহায়তা পাবেন। এছাড়াও ২,০০,০০০ টাকা মৃত্যু বীমার সুবিধা পাওয়া যাবে, যা তার পরিবার লোকজন পাবে। এছাড়াও বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাবেন।

আরও পড়ুন: Jago Prakalpa – জাগো প্রকল্প! প্রতিবছর মহিলারা পাবে ৫,০০০ টাকা, কিভাবে আবেদন করবেন জেনেনিন।

কিভাবে আবেদন করবেন?

সিএসসি-এর মাধ্যমে আবেদন: সিএসসি-এর মাধ্যমে আবেদন করতে হলে নিকটস্থ সিএসসি কেন্দ্রে যেতে হবে। সেখানে আবেদনপত্র পূরণ করে জমা দিতে হবে। অনলাইনে আবেদন। অনলাইনে আবেদন করতে হলে ই-শ্রম পোর্টালে যেতে হবে। সেখানে আবেদনপত্র পূরণ করে জমা দিতে হবে। 

অনলাইনে আবেদনের প্রক্রিয়া নিম্নরূপ:

  • ই-শ্রম পোর্টালে যান।
  • “স্ব-নিবন্ধন পৃষ্ঠা”-তে ক্লিক করুন।
  • আপনার আধার লিঙ্ক করা মোবাইল নম্বর এবং ক্যাপচা কোড লিখুন।
  • “ওটিপি পাঠান” বোতামে ক্লিক করুন।
  • আপনার মোবাইলে পাঠানো ওটিপি লিখুন।
  • স্ক্রিনে প্রদর্শিত ব্যক্তিগত বিবরণ নিশ্চিত করুন।
  • প্রয়োজনীয় বিবরণ লিখুন, যেমন ঠিকানা, শিক্ষাগত যোগ্যতা ইত্যাদি।
  • দক্ষতার নাম, ব্যবসার প্রকৃতি এবং কাজের ধরন নির্বাচন করুন।
  • আপনার ব্যাংকের বিবরণ লিখুন এবং “স্ব-ঘোষণা” নির্বাচন করুন। প্রবেশ করা বিশদ যাচাই করতে “প্রিভিউ” বিকল্পে ক্লিক করুন।
  • “জমা” বোতামে ক্লিক করুন।
  • আপনার মোবাইলে পাঠানো ওটিপি লিখুন।
  • “যাচাই” বোতামে ক্লিক করুন।
  • আপনার ই-শ্রম কার্ড তৈরি হবে এবং স্ক্রিনে প্রদর্শিত হবে।
  • ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করে আপনার ই-শ্রম কার্ড ডাউনলোড করতে পারেন।

আরও পড়ুন: DA বৃদ্ধির পর রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের নতুন বেতন কত হল? কতটা খুশি রাজ্য কর্মচারীরা দেখে নিন।

উপসংহার

কেন্দ্রীয় সরকার অসংগঠিত শ্রেণীর কর্মীদের সামাজিক নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য ই-শ্রম কার্ড প্রকল্প শুরু করেছেন। এই কার্ড থাকলেই আপনি ৬০ বছরের পর প্রতিমাসে ৩,০০০ টাকা পেনশন, জীবন বীমা এবং আরও একাধিক সুবিধা পাবেন। আবেদন প্রক্রিয়া উপরে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে।

এই ধরনের অর্থনীতি সম্পর্কিত তথ্য সহজ বাংলা ভাষায় পেতে আমাদের যুক্ত থাকুন 👇

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপJoin Us
আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলFollow Us
আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলJoin Us
আমাদের ফেসবুক পেজFollow Us
Google নিউজে ফলো করুনFollow Us

5 thoughts on “E-Shram Card: ই-শ্রম কার্ড থাকলেই পাবেন মাসে ৩০০০ টাকা! কেন্দ্রের বিরাট ঘোষণা, জেনেনিন আবেদন করার পদ্ধতি”

  1. I live in West Bengal and have had E Shram Card ever since Central Govt introduced it but till now I have not received even a single rupee I don’t know why.

    Reply

Leave a Comment