শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

পি.পি.এপ না মিউচুয়াল ফান্ড কোনটি আপনার জন্য ভালো | PPF vs Mutual Fund in Bengali Which is Better

Photo of author

By Anjan Mahata

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

PPF vs Mutual fund in bengali: পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড এটা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মনে নানান প্রশ্ন এবং দ্বিধা রয়েছে । আপনাদের হাতে যে টাকাটা রয়েছে সেটা কোথায় ইনভেস্ট করলে ভালো পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড । আজকে আপনাদের মনে থাকা সমস্ত কনফিউজন দূর করার জন্য এই পোস্টের মাধ্যমে গভীরভাবে আলোচনা করব যে আপনার কোথায় বিনিয়োগ করা উচিত । যেহেতু প্রত্যেকটি বিনিয়োগকারীর বিনিয়োগ সম্পর্কে আলাদা আলাদা মতামত রয়েছে তাই পোস্টটির প্রথমেই বলছি না যে পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড ভালো। এই পোষ্টের মাধ্যমে পি.পি.এফ এবং মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে কিছু পয়েন্টের তুলনা করা হয়েছে এবং সেই পয়েন্টগুলি পড়ার পর আপনি সিদ্ধান্ত নেবেন কোনটি ভালো পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড । এই পোষ্টের মধ্যে সেই সব পয়েন্ট রাখা হয়েছে যা কোনো বিনিয়োগকারী অর্থ বিনিয়োগ করার আগে ভাবেন । এরপর আপনি সিদ্ধান্ত নিবেন কোন ইনভেস্টমেন্ট আপনার জন্য সেরা।

মিউচুয়াল ফান্ড কি?

মিউচুয়াল ফান্ড হলে এক ধরনের যৌথ বিনিয়োগ যার মধ্য বিনিয়োগকারী স্বল্প মেয়াদী বা দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ করে থাকে ।

আরও পড়ুন>> মিউচুয়াল ফান্ড কি মিউচুয়াল ফান্ডে কিভাবে অর্থ বিনিয়োগ করবেন

পি.পি এফ কি ?

পি.পি.এফ এর সম্পূর্ণ অর্থ হল পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড ( Public Provident fund) । এই প্রকল্পটি ১৯৬৮ সালে ভারত সরকার দ্বারা চালু করা হয়েছে যা একটি সঞ্চয় বা দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগ ।

আরও পড়ুন>> পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড কি? পি পি এফ সম্পূর্ণ তথ্য

পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড কোনটি ভালো (PPF vs Mutual fund in bengali)

পি.পি.এফ এবং মিউচুয়াল ফান্ডের তুলনা কিছু পয়েন্টের ভিত্তিতে করা হয়েছে সমস্ত পয়েন্ট গুলো দেখে আপনি সিদ্ধান্ত নিবেন আপনার কোথায় বিনিয়োগ করা উচিত ।

১)রিটার্ন

প্রথমত পি.পি.এফ এর রির্টান ফিক্স কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ড এ রির্টান ফিক্সড নয়

সাধারণত সরকার পিপিএফ এর সুদের পরিমাণ পরিবর্তন না করলেও যে ট্রেন্ড দেখা দিয়েছে যে এক বছর দু বছর অন্তর পি.পি.এফের সুদের পরিমাণ আস্তে আস্তে কমতে শুরু করেছে । ব্যাংকের FD বা যেকোনো সরকারি বিনিয়োগ এগুলো এখন ব্যাংকের রিপোর্টের উপর নির্ভর করে । যেহেতু আমাদের দেশে মূল্য বৃদ্ধির পার্সেন্টেজ কমছে সেহেতু PPF বলুন বা FD বলুন সব ক্ষেত্রে সুদের পরিমাণ কমছে। গত কয়েক বছর আগে পি.পি.এফ এ ৯%বা ৮% হারে সুদ দেওয়া হতো । পি পি এফ এ আপনাকে একটি ফিক্সড রিটার্ন দেবে কিন্তু পিপিএফ এ বর্তমানে সুদের পরিমাণ কম । পি পি এফ এ বর্তমানে ৭.১% হারে সুদ পাওয়া যায়

কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ড এর ক্ষেত্রে কোনো রকম Fixed interest নেই । কারণ মিউচুয়াল ফান্ড মার্কেটের উপর নির্ভর করে । তবে যদি আপনি লার্জ ক‍্যাপ মিউচুয়াল ফান্ড বা মিড ক্যাপ মিউচুয়াল ফান্ড এ লং টার্মের জন্য ইনভেস্ট করেন তবে আপনি পি.পি.এফ এর থেকে বেশি সুদ পাবেন ।

তাই লং টার্মের বিনিয়োগের ক্ষেত্রে মিউচুয়াল ফান্ড পি পি এফ এর তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে ।

২)রিস্ক

অনেকের মনে ধারণা আছে যে কোম্পানিগুলো উঠে যেতে পারে বা কোম্পানিগুলি সাধারণ মানুষের টাকা নিয়ে পালিয়ে যেতে পারে। এই বিষয়টা কিন্তু রিস্ক ফ্যাক্টর নয় । কখনোই কোনো বড় কোম্পানি আপনার টাকা নিয়ে পালিয়ে যাবে না।

পি.পি.এফ যেহেতু সরকার দ্বারা পরিচালিত হয়। তাই এখানে আপনার রিক্সের পরিমাণ কম আপনার ম্যাচুরিটির দিনে আপনি ঠিক আপনার টাকা নিশ্চিত ভাবে পেয়ে যাবেন ।

কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডে ব্যাপারটা আলাদা মিউচুয়াল ফান্ডে আপনার যখন টাকাটার দরকার ১০ বছর বা ১২ বছর পর তখন টাকাটা তুললে আপনি যে পরিমাণ রিটার্নের আশা করেছিলেন সেটা হয়তো পেলেন না । অর্থাৎ আপনার টাকা লস হয়ে গেল । মিউচুয়াল ফান্ডে লং টার্মের জন্য ইনভেস্টমেন্ট করলে লস হয় না । কিন্তু শর্ট টার্ম এর ক্ষেত্রে লস হতে পারে । যদি আপনি দু তিন বছরের মাথায় টাকা তুলে নেন তাহলে আপনার লস হতে পারে

পি পি এফ এর ক্ষেত্রে আপনি দু-তিন বছরের মধ্যে টাকা তুলে নিলে সে পরিমাণ লস হবে না অর্থাৎ আপনার মূল টাকা কখনোই কমে যাবে না কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে আপনার মূল অর্থ কমে যেতে পারে।

কিন্তু পি.পি.এফ এবং মিউচুয়াল ফান্ডে ইনভেস্টমেন্ট শর্ট টার্মের ইনভেস্টমেন্ট নয় । শর্ট র্টামের এর ক্ষেত্রে আপনারা FD করতে পারেন।

৩) ট্যক্স বেনিফিট

পি.পি.এফ এর ক্ষেত্রে খুব বড় পয়েন্ট হলো ট্যাক্স বেনিফিট । পি.পি.এফ EEE (examted examted examted) catagory তে পড়ে । পুরনো ট্যাক্স পদ্ধতিতে পিপিএফ এ ৮০সি সেকশনে অনুযায়ী ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ট্যাক্সে ছাড় পাবেন।

কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে এই ট্যাক্স ছাড় টি নেই অর্থাৎ এই সেকশনটি নেই।

পি.পি.এপ এর ক্ষেত্রে ম্যাচিউরিটি Tax Free । কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে ম্যাচিউরিটি Tax Free নয় । অর্থাৎ আপনি যে টাকাটা অর্জন করবেন সেটা ট্যাক্স ability এর মধ্যে পড়ে ।

অর্থাৎ ট্যাক্স বেনিফিটের ক্ষেত্রে মিউচুয়াল ফান্ডের তুলনায় পিপিএফ সম্পূর্ণ এগিয়ে।

৪)লিকুইডিটি

লিকুইডিটি এর অর্থ হল আপনি আপনার টাকা কত সহজে তুলতে পারবেন

পি.পি.এফ হল লং টার্মের ইনভেস্টমেন্ট অর্থাৎ আপনি যদি ম্যাচিউরিটির আগেই আপনার টাকা তুলে নিতে চান তাহলে আপনাকে অনেক Terms & condition এর সম্মুখীন হতে হবে তাই এই বিষয়টি অনেক জটিলতা ধারণ করে । অর্থাৎ পি.পি.এফ লিকুইডিটির দিক থেকে ভালো নয় ।

অপারপক্ষে, মিউচুয়াল ফান্ডে টাকা বিনিয়োগ করার পর আপনি এক বছর দুবছর বা যেকোনো সময় আপনি আপনার টাকা সহজেই তুলে নিতে পারেন । মিউচুয়াল ফান্ডে আপনি যেদিন টাকা রিডিম করবেন তার দু-তিন দিনের মধ্যে আপনার টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে চলে আসবে । মিউচুয়াল ফান্ডে এক বছরের পর টাকা তোলার সময় আপনার কোন ফর্ম ভরতে হচ্ছে না বা অন্যান্য কোন ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে না।

সর্বশেষে বলা বাহুল্য যে পি.পি.এফ এর তুলনায় মিউচুয়াল ফান্ডে এর লিকুইডিটি ভালো ‌‌।

৫)ডিপোজিট লিমিট

পি.পি.এফ এর ক্ষেত্রে আপনি বছরে ১.৫ লক্ষ টাকার উপরে জমা করতে পারবেন না । এবং পি.পি.এফ একাউন্ট একজনের নামে একটাই করা যায় । অর্থাৎ মোট কথা এটাই যে আপনার কাছে যতই টাকা থাকুক না কেন আপনি পি.পি.এফ এ একসঙ্গে তা জমা করতে পারবেন না । ভবিষ্যতে সরকার যদি এটা বাড়িয়ে দুই লক্ষ বা তিন লক্ষ টাকা করে তবুও একটা লিমিট থেকে যাবে ।

কিন্তু অপরপক্ষে মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে এরকম কোনো ডিপোজিট লিমিট নেই । যদি আপনার কাছে বেশি পরিমাণে টাকা থাকে তাহলে আপনি এবং আপনি যদি একসাথে তা বিনিয়োগ করতে চান তাহলে মিউচুয়াল ফান্ড এ আপনি বিনিয়োগ করতে পারেন। কিন্তু পি.পি.এফ এ একটা নির্দিষ্ট লিমিট পর্যন্ত আপনি ডিপোজিট করতে পারেন ।

৬) আইনি সুরক্ষা

অনেক সময় ঋণ খেলাপি হয়ে যেতে পারে বা কোনো অসুবিধা হতে পারে বা আপনার এগেনস্টে কোন কেস হতে পারে যা কিছু হোক না কেন পি.পি.এফ আন্ডার সেকশন 14A ধারা অনুযায়ী বিশেষ আইনি সুরক্ষা পায় । আপনার পি.পি.এফ এর টাকা কোনো সরকার বা প্রশাসন দ্বারা সিজ করা যাবে না। আপনার টাকা সর্বদা আপনারই থাকবে । পি.পি.এফ এর ক্ষেত্রে এ আইনের সুরক্ষা থাকবে ।

কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে কোন লিগেল প্রটেকশন নেই । যদি কোনো সমস্যা হয়, প্রশাসনের ক্ষমতা আছে আপনার ওই সম্পদ টাকে সিজ করে নেওয়ার ।

এই পোস্টের মধ্য দিয়ে আপনারা বুঝতে পারলেন যে পি.পি.এফ এবং মিউচুয়াল ফান্ডের প্রত্যেকটির একটি নিজস্ব বেনিফিট রয়েছে । প্রত্যেক বিনিয়োগকারীর বিনিয়োগ সম্বন্ধে মতামত আলাদা তাই আপনি বিনিয়োগ করার আগে দেখে নেবেন আপনার পক্ষে কোনটি ভালো পি.পি.এফ নাকি মিউচুয়াল ফান্ড। যারা একদমই রিস্ক নিতে চান না এবং যাদের টাকা লং টার্মের জন্য থাকবে এবং যারা ট্যাক্স বেনিফিট এড়িয়ে যেতে চান তাদের জন্য পি.পি.এফ ভালো। এবং যাদের বয়স ৩০ বছরের নিচে এবং তারা যদি লং টার্মের জন্য ইনভেস্টমেন্ট করতে চান তাহলে অবশ্যই মিউচুয়াল ফান্ডে ১৫ বছর ২০ বছর বা ২৫ বছরের জন্য ইনভেস্টমেন্ট করতে পারেন কারণ এক্ষেত্রে পি.পি.এফ এর তুলনায় মিউচুয়াল ফান্ড এ নিশ্চিত ভাবে বেশি রিটার্ন দেবে ।

আরও পড়ুন>> মিউচুয়াল ফান্ড এবং শেয়ার বাজার কোনটিতে বিনিয়োগে বেশি লাভ

Disclaimer:

মিউচুয়াল ফান্ডের অনেক ভাগ রয়েছে। সমস্ত পোষ্টের মধ্যে ইকু্য়েটি মিউচুয়াল ফান্ড নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে কারণ সমস্ত প্রকার মিউচুয়াল ফান্ড নিয়ে আলোচনা করলে পোস্টটি অত্যন্ত জটিল হয়ে পড়তো । তাই সমস্ত প্রকারের মিউচুয়াল ফান্ডের সাথে এই বিষয়গুলির উপর দাঁড়িয়ে পি.পি.এফ এর সঙ্গে মিউচুয়াল ফান্ডের তুলনা করবেন না ।

FAQ

মিউচুয়াল ফান্ড কি?

মিউচুয়াল ফান্ড হল এক ধরনের যৌথ বিনিয়োগ যার মধ্য বিনিয়োগকারীরা স্বল্প মেয়াদী বা দীর্ঘমেয়াদী অর্থ বিনিয়োগ করে থাকে।

পি পি এফ কি?

ভারত সরকার দ্বারা পরিচালিত এক প্রকার বিনিয়োগ পদ্ধতি। পিপিএফ কথার পুরো অর্থ হল পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড।

পি পি এফ না মিউচুয়াল ফান্ড কোনটি বেশি লাভজনক?

পিপিএফ ভারত সরকার দ্বারা পরিচালিত পিপিএফ এ ইন্টারেস্টের পরিমাণ নির্দিষ্ট। অপরদিকে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ইন্টারেস্টের পরিমাণ নির্দিষ্ট নয়, ইন্টারেস্ট রেট বেশিও হতে পারে আবার কমও হতে পারে। মিউচুয়াল ফান্ডে লাভের সম্ভাবনা যেমন রয়েছে তেমনি ঝুঁকির সম্ভাবনাও রয়েছে।

Leave a Comment