শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

বিটকয়েন কি?-ধনী হওয়ার সহজতম উপায় | what is bitcoin and how it is work fully explain in Bengali

Photo of author

By Anjan Mahata

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

what is bitcoin and how it is work fully explain in Bengali: সহজ কথায় বললে বিটকয়েন হলো এক প্রকারের ক্রিপটোকারেন্সি । ক্রিপ্টোকারেন্সির যে মার্কেট রয়েছে তার প্রায় পুরোটা অর্থাৎ 65 শতাংশ কন্ট্রোল করে থাকে বিটকয়েন । এরপর আপনাদের মনে হতে পারে যে ক্রিপ্টোকারেন্সি কি-

ক্রিপ্টোকারেন্সি কি?

ক্রিপ্টোকারেন্সি হলো digital form of currency । Crypto শব্দের অর্থ হল secret অর্থাৎ গোপন। cryptocurrency এর অর্থ হলো secret currency অর্থাৎ গোপন অর্থ । যেখানে government বা কোন থার্ড পার্টি এর কন্ট্রোল থাকছে না । যেটা ব্লক চেন মারফত এবং ডাটা ট্রান্সফারের মধ্য দিয়ে ক্রিপ্টো টাকে চালানো হয় ।

আরও পড়ুন>> ক্রিপ্টোকারেন্সি কী? প্রকারভেদ , সুবিধা, অসুবিধা

আজকে এই পোষ্টের মাধ্যমে বিটকয়েন সম্পর্কে দশটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট আলোচনা করব । যে ১০ টি পয়েন্ট আপনাকে বিটকয়েন সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানতে সম্পূর্ণভাবে সহায়তা করবে। তাই আপনি যদি বিটকয়েন সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন:-

১)Bitcoin এর আবিষ্কর্তা

Bitcoin এর আবিষ্কর্তা হল Satoshi Nakamoto । কিন্তু ঘটনাটি হলো যে একটি রিসার্চ পেপার পাবলিশ করা হয় সেই রিসার্চ পেপার Satoshi Nakamoto নামে একজন ব্যক্তি দাবি করেন যে তিনি বিটকয়েন এর আবিষ্কর্তা । কিন্তু এটাকে আসলে মনে করা হয় যে এটি একটি ভুয়া নাম বা ভুল নাম এবং এই নামটি হলো একটি কাল্পনিক নাম ‌। আসল ব্যক্তির নাম প্রকাশিত হয়নি। যিনি আবিষ্কার করেছেন আসলে কে স্বভাবগতই তাকে আমরা চিনি না ।

Satoshi Nakamoto photo
satoshi nakamoto

২) বিটকয়েন আবিষ্কারের উদ্দেশ্য

বিটকয়েন যিনি আবিষ্কার করেছেন তার কথা অনুযায়ী উদ্দেশ্যটি ছিল এই যে সম্পূর্ণ গোপনীয়তা থাকবে কার কাছে কতটা বিটকয়েন রয়েছে এবং বিটকয়েন কোথা থেকে কোথায় Transaction হচ্ছে এবং সেখানে সরকারের কোনো প্রকার হাত থাকবে না এবং তার কথা অনুযায়ী যেহেতু এটা প্রাইভেট ডিজিটাল কারেন্সি সেহেতু এর তথ্য বেশি জনগণকে জানানো হয়নি । অর্থাৎ এই উদ্দেশ্য থেকে বিটকয়েনের যে সত্যিকারের আবিষ্কারক তাকে চেনা যায়নি । তাই Satoshi Nakamoto এই নাম নিয়ে বিটকয়েন এর আবিষ্কারক হিসেবে Official ভাবে দাবি করেছেন ।

) বিটকয়েন -কে কি ভাগ করা যায়

টাকার যেরকম অনেক ভাগ রয়েছে যেমন ১০০ পয়সায় ১ টাকা । আবার আপনারা শুনে থাকবেন যে টাকাকড়ি -এই কথাটি , আপনারা শুনে থাকবেন যে ‘এই মানুষটির বেশি টাকাকড়ি রয়েছে’ এই যে টাকা কড়ি অর্থাৎ কত কড়িতে কত টাকা হয় । অর্থাৎ এগুলির মধ্যে বোঝা যায় যে টাকার অনেক ভাগ রয়েছে । তো সেরকমই বিটকয়েনেরও ভাগ রয়েছে । বিটকয়েনের সব থেকে ছোটো ভাগটি রয়েছে তাকে Satoshi বলা হয় । 100 Million Satoshi নিয়ে একটা বিটকয়েন। ১০০ মিলিয়ন মানে ১০ কটি Satoshi । বিটকয়েনের আরেকটি ছোট্ট ভাগ হল মিলিবিটকয়েন কয়েন । ১০০০ মিলিবিটকয়েন এর অর্থ হলো ১টি বিটকয়েন । সুতরাং বিটকয়েনের ১০০০ ভাগের এক ভাগ হলো মিলিবিটকয়েন । সুতরাং টাকা পয়সার মতো বিটকয়েন কেও ভাগ করা যায় । এবং আপনি বিটকয়েন কে যেকোন ফ্র্যাকশনে কিনতে পারেন । যেমন আপনি মনে করলেন বিটকয়েন কিনবেন তো আপনাকে একটা পুরো বিটকয়েন করেন কিনতে হবে না আপনি মিলিবিটকয়েন অথবা Satoshi কিনতে পারেন।

৪)Bitcoin কিভাবে Transfer হয়

PEER to PEER network এ বিটকয়েন Transfer হয়। যেখানে অন্য কোন ব্যক্তির কোন হাত থাকে না । এক ব্যক্তির কম্পিউটার থেকে অন্য এক ব্যক্তির কম্পিউটারে বিটকয়েন ট্রান্সফার করা হয় এবং শুধুমাত্র সেই ব্যক্তি এই সেটি access করতে পারবে।

৫) বিটকয়েনের ইতিহাস

২০০৮ সালে বিটকয়েনের আবিষ্কার প্রথম হয়েছিল বলে মনে করা হয় । কিন্তু বিটকয়েন বাজার জাত হয় ২০০৯ সালে । বিটকয়েন যখন প্রথম বাজারজাত হয় তখন একটি বিটকয়েনের দাম ছিল ০.০৯ ডলার যার ভারতীয় মূল্য ৬.৫৭ থেকে ৬.৬০ টাকা । কিন্তু বর্তমানে আজকের তারিখে একটা বিটকয়েনের দাম প্রায় ২৪ লক্ষ টাকার বেশি । সুতরাং আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন যে ২০০৮ থেকে ২০২৩ সালে বিটকয়েনের যে কতটা পরিমাণ ভ্যালুয়েশন বৃদ্ধি পেয়েছে ।

৬) Bitcoin এর valuation

বিটকয়েনের ভ্যালুয়েশন খুব অস্থির , বিটকয়েনের ভ্যালু কখনো খুব বেশি বাড়তে থাকে আবার কখনো কমতে থাকে । মাত্র তিন সেকেন্ড অন্তর অন্তর বিটকয়েন এর ভ্যালুয়েশন পরিবর্তিত হতে থাকে । তাই যখন আপনি বিটকয়েন কিনবেন এই ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হবে ।

৭)Bitcoin এর সংখ্যা কত ?

বিটকয়েনের মোট সংখ্যা ২১ মিলিয়ন । এরমধ্যে ১৮.৯ মিলিয়ন বিটকয়েন বাজারে অবস্থান করছে। বাকি সব মালিকের কাছে আছে । বিটকয়েনের এতটাই প্রাইভেসি যে এর মালিক কে আছে তা বোঝা যায়নি । অর্থাৎ মোট বিটকয়েনের পরিমাণ ভবিষ্যতে ও একই থাকবে । মোট বিটকয়েনের পরিমাণ ২০০৯ সালে যা ছিল তা ২০২৩ সালেও আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে ।

El Salvador নামে যে দেশটি রয়েছে তা পৃথিবীর ছোট একটা দেশ এই দেশটি প্রথম বিটকয়েন কে Legal Tender হিসেবে বিবেচিত করেছিল । এছাড়াও অনেক বড় বড় কোম্পানি বিটকয়েন কে accept করত । যার মধ্যে একটি হলো WORDPRESS এটার মধ্য দিয়ে নানা রকম website তৈরি করা হয় ।

৯) Bitcoin এর Market capital

Bitcoin এর Market capital পুরো পৃথিবী অনুযায়ী অনেক ছোট।Elion Musk বিটকয়েন কিনে tweet করেছিলেন নিজের বিটকয়েনের ভ্যালুয়েশন নিজেই বাড়িয়ে দিয়েছিলেন ।

১০) বিটকয়েন কিভাবে পরিচালিত হয়

বিটকয়েন বা যে কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সির single regulation bord হয় না বা কোনো authority নেই।

FAQ

বিটকয়েন কি ?

বিটকয়েন দুনিয়ার প্রথম ক্রিপটোকারেন্সি যেটি বিকেন্দ্রিক ডিজিটাল মুদ্রা হিসেবে পরিচিত ।

বিটকয়েন এর আবিষ্কারক কে ?

২০০৮ সালে Bitcoin এর আবিষ্কার করেছিলেন Satoshi Nakamoto ।

বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে ?

বিটকয়েন PEER to PEER network ভিত্তিক কাজ করে ।

Leave a Comment