শেয়ার বাজার মিউচুয়াল ফান্ড পোস্ট অফিস স্কিম ব্যাঙ্ক স্কিম ক্রেডিট কার্ড ডিমেট অ্যাকাউন্ট ইন্সুরেন্স সমস্ত FD ক্যালকুলেটর

The 50-30-20 rule: কম বেতনও বড়লোক হওয়ার সূত্র! এই নিয়মে টাকা খরচ এবং সঞ্চয় করুন।

Photo of author

By Anjan Mahata

গ্রুপে যুক্ত হনচ্যানেলে যুক্ত হন

The 50-30-20 rule in Bengali Details Explained: প্রত্যেক ব্যক্তির অবশ্যই টাকা উপার্জনের পাশাপাশি টাকা সঞ্চয় এবং বিনিয়োগের প্রতি নজর দিতে হবে। আপনি যদি আপনার বেতন অনুযায়ী প্রতি মাসেই নিয়ম করে টাকা বিনিয়োগ বা সঞ্চয় করেন তাহলে আপনি খুব সহজে বড়লোক হতে পারবেন। আজকের এই প্রতিবেদনে টাকা খরচ এবং সঞ্চয় অর্থাৎ টাকাকে কিভাবে ম্যানেজমেন্ট করবেন এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এক্ষেত্রে টাকা ম্যানেজমেন্ট করার ৫০-৩০-২০ এই সূত্রটি অবলম্বন করা হয়েছে।

টাকা ম্যানেজমেন্টের ৫০-৩০-২০ সূত্র

টাকা ম্যানেজমেন্ট এর ৫০-৩০-২০ এ সূত্রটির মূল নীতি হল আপনি আপনার উপার্জিত অর্থের ৫০ শতাংশ টাকা আপনার পারিবারিক খরচ চালানোর জন্য ব্যবহার করবেন, ৩০ শতাংশ টাকা আপনি আপনার বিনোদনের জন্য খরচ করবেন এবং বাকি ২০ শতাংশ টাকা আপনি ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চয় করবেন

৫০ শতাংশ টাকা

এই ৫০ শতাংশ টাকার মধ্যে আপনার সম্পূর্ণ সাংসারিক খরচ চালাতে হবে। এর মধ্যে মুদিখানার খরচ, বাড়ি ভাড়া, যাতায়াতের খরচ এবং সন্তানের পড়াশোনার খরচ যুক্ত রয়েছে।

৩০ শতাংশ টাকা

এরপর আপনি বাকি ৩০ শতাংশ টাকা আপনার বিনোদনের জন্য খরচ করতে পারেন। এক্ষেত্রে সিনেমা দেখা বাইরে ঘুরতে যাওয়া যুক্ত রয়েছে এছাড়াও এই টাকা দিয়ে আপনি আপনার বাড়ির কাজের জন্য নতুন কিছু জিনিস কিনতে পারেন।

২০ শতাংশ টাকা

এরপর ২০ শতাংশ টাকা আপনাকে অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগ করার। এক্ষেত্রে আপনি ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট, পোস্ট অফিসের স্কিম, সরকারি প্রকল্প, মিউচুয়াল ফান্ড বা শেয়ার মার্কেটে ইনভেস্ট করতে পারেন।

অবশ্যই পড়ুন » TATA Monthly Income Scheme: প্রতিমাসে ২০,০০০ টাকা পেতে টাটা কোম্পানির এই স্কিমে SWP করুন

উদাহরণসহ বুঝে নিন ৫০-৩০-২০ সূত্রটি

ধরেনিন আপনার বর্তমান বেতন ১০ হাজার টাকা এর ৫০ শতাংশ অর্থ অর্থাৎ ৫ হাজার টাকা আপনি আপনার সাংসারিক খরচ চালানোর জন্য ব্যয় করতে পারেন এরপর বাকি ৩০ শতাংশ টাকা অর্থাৎ ৩ হাজার টাকা আপনি বিনোদনের জন্য খরচ করতে পারেন এরপর আপনাকে অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে অবশিষ্ট ২০ শতাংশ টাকা ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগ করার। অর্থাৎ আপনার যদি 10000 টাকা ইনকাম হয় সেক্ষেত্রে প্রতি মাসে ২ হাজার টাকা অবশ্যই ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগ করুন।

কম বেতনেও বড়লোক হওয়ার উপায়

আপনার মাসিক বেতন যদি ১০ হাজার টাকা হয় এবং আপনি যদি ২০ শতাংশ টাকা ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগ করেন অর্থাৎ ২ হাজার টাকা প্রতি মাসে বিনিয়োগ করেন তাহলে আপনি কোটিপতি হতে পারবেন।

আপনি যদি ২০০০ টাকা মিউচুয়াল ফান্ডে প্রতি মাসে এসআইপি করেন এবং আপনি যদি ১৫ শতাংশ পান সেক্ষেত্রে ১০ বচ্ছর পর আপনি রিটার্ন পাবেন ৫,৫৭,৩১৫ টাকা এবং ২০ বছর পর রিটার্ন পাবেন ৩০,৩১,৯১০ টাকা এবং ৩০ বছর পর আপনি রিটার্ন পাবেন ১,৪০,১৯,৬৪১ টাকা।

অবশ্যই পড়ুন » Rule Of 144: টাকা চার গুণ করার সূত্র! দেখে নিন আপনার জমানো টাকা কতদিন পর চার গুণ হবে।

এই ধরনের অর্থনীতি সম্পর্কিত তথ্য সহজ বাংলা ভাষায় পেতে আমাদের টেলিগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হন 👇

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপJoin Us
আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলFollow Us
আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলJoin Us
আমাদের ফেসবুক পেজFollow Us
Google নিউজে ফলো করুনFollow Us